1. admin@coxtimes.com : admin :
শিরোনাম :
সচেতনতায় পুলিশ মাঠে…. করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়লেও ঈদগাঁওতে বাড়েনি মানুষের মাঝে সচেতনতা ঈদগাঁওর জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাঠ পর্যায় ইউএনও ঈদগাঁও বাজা‌রে সড়‌কের উপর দোকান নির্মাণ, ভূ‌মি অ‌ফি‌সের নি‌ষেধাজ্ঞা ইসলামের প্রচার-প্রসারে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি: শেখ হাসিনা। হ্নীলার দালাল আবছার রোহিঙ্গা নারীসহ বিমানবন্দরে আটক। জনগণের দুর্ভোগ লাগব করতে দ্রুত টেকসই সড়ক উপহার দিবো -কউক চেয়ারম্যান বিষপানে পুত্রবধূ নাসরিনের আত্মহত্যা সাংসদের ওয়ার্ডের রাস্তার ইট বিক্রি করে দিল মেম্বার! ইসলামবাদে (ব্র্যাক)আইন সহায়তা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত কক্সবাজারে যুবককে শিকল দিয়ে বেঁধে বর্বর নির্যাতন। সেনাবাহিনীর নব প্রধান হচ্ছেন এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ। ঝালকাঠিতে উপায়’র মাধ্যমে ট্রাফিক মামলার জরিমানা পরিশোধে ঝালকাঠি জেলা পুলিশের চুক্তি

প্রতিবাদে উত্তাল ঢাকা
নবী (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশে ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও শান্তিনগরে মিছিলে পুলিশের বাধা : সংসদে ম্যাখোঁর বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাসের দাবি বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় মিছিল

  • আপডেট টাইম: Wednesday, October 28, 2020
  • 83 বার পড়া হয়েছে

ফ্রান্সে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় নবী (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রদর্শনে সারাবিশ্বে প্রতিবাদের ঢেউ উঠেছে। ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে বিশ্বের বহুদেশ। বাংলাদেশের তৌহিদী জনতা ফুঁসে উঠেছেন। দেশের ইসলামী ধারার রাজনৈতিক দলগুলোর একের পর এক প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করছেন। বাতিল প্রতিরোধ পরিষদ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, মোহাম্মদপুর কাদেরিয়া তৈয়্যবিয়া আলিয়া মাদরাসা, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ঢাকার গুলশানস্থ ফ্রান্স দূতাবাস ঘেড়াও কর্মসূচি পালন করে। ফ্রান্সের ব্যঙ্গচিত্র কার্টুনের প্রতিবাদে মিছিলে মিছিলে উত্তাল হয়ে উঠে ঢাকা মহানগরী। রাজধানী ঢাকার বাইরে কয়েকটি জেলা ও উপজেলায়ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন তৌহিদী জনতা। সবার মুখে এক ছিল একই শ্লোগান ‘ফ্রান্সের পণ্য বর্জন করো/ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের ম্যাখোঁর বিচার করতে হবে’।

বায়তুল মোকাররম মসজিদ থেকে গুলশানস্থ ফ্রান্স দূতাবাস ঘেড়াও কর্মসূতিতে পথে মিছিলে জনশ্রোতের সৃষ্টি হয়। প্রকম্পিত হয়ে উঠে ঢাকা মহানগর রাজপথ। প্রতিবাদী মিছিল শান্তিনগরে আটকে দেয়া হলেও দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলায় একই দাবিতে মিছিল হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবারও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের ম্যাখোঁর বিচার এবং দেশটির পণ্য বর্জনের দাবিতে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে ঈমানদার মুসল্লিরা বিক্ষোভ করেন। নবী প্রেমিক মুসল্লিরা ফ্রান্সে নবীর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের প্রতিবাদে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের নেতৃত্বে হাজার হাজার মুসল্লি ঢাকাস্থ ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেন। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইট থেকে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে দূতাবাস ঘেরাও করার লক্ষ্যে বিশাল মিছিল শান্তিনগর বাজারের সামনে পৌঁছলে পুলিশি বাধার সম্মুখীন হয়। এসময় পুলিশ ও বিক্ষোভকারী মুসল্লিদের মাঝে ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে।

বিক্ষোভ সমাবেশে পীর সাহেব চরমোনাই নবী (সা.) ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশের প্রতিবাদে আগামীকাল বৃহস্পতিবার সারাদেশের জেলা ও মহানগরে বিক্ষোভ কর্মসূচি, আগামী শুক্রবার মসজিদের ইমাম খতিবদের প্রতি নবী (সা.) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে বক্তব্য প্রদান এবং সকল মসজিদ থেকে সাধারণ মুসল্লিদের প্রতিবাদ মিছিল বের করার অনুরোধ জানান। এছাড়া আজ বুধবার বাদ যোহর ইসলামী ঐক্যজোটের উদ্যোগে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইটে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। একই দাবিতে আগামী শুক্রবার বাদ জুমা সমমনা ইসলামী দলসমূহ, সম্মিলিত ইসলামী দলসমুহ এবং বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি বায়তুল মোকাররমে ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ: ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় নবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র কার্টুন প্রকাশ করায় সারাবিশ্বের মুসলমানদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে। গোটা বিশ্বে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের মাধ্যমে ওদের উচিৎ শিক্ষা দিতে হবে। ফ্রান্সের কুলাঙ্গার প্রেসিডেন্ট ম্যাখোঁ প্রকাশ্যে ক্ষমা না চাওয়া পর্যন্ত মুসলমানদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। ফ্রান্সে নবী (সা.) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে অচিরেই জাতীয় সংসদ ডেকে নিন্দা প্রস্তাব পাশ করুন। ফ্রান্সের সাথে সকল প্রকার কূটনৈতিক সর্ম্পক ছিন্ন করতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইটে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর উদ্যোগে ফ্রান্সে নবী (সা.) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে ঢাকাস্থ ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও পূর্ব বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্বের বক্তব্যে দলে আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই এসব কথা বলেন।

দলের প্রচার সম্পাদক মাওলানা আহমদ আব্দুল কাইয়ূমের পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, প্রেসিডিয়াম সদস্য আল্লামা নূরুল হুদা ফয়েজী, দলের মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুস আহমাদ, দলের রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা মাহবুবুর রহমান, মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, মাওলানা হাসান জামিল, মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, মাওলানা ফজলে বারি মাসউদ, কে এম আতিকুর রহমান, মাওলানা লোকমান হোসেন জাফরী, মাওলানা নেছার উদ্দিন, জি এম রুহুল আমিন, মুফতি দেলাওয়ার হোসেন সাকী, মাওলানা কামাল উদ্দিন সিরাজী, মাওলানা এ বিএম জাকারিয়া ও মাওলানা সিদ্দিকুর রহমান।

পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, রাসুল (সা.) কে আল্লাহ দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন শান্তির দূত হিসেবে। ম্যাখোঁ কুলাঙ্গাররা জানে না মুসলমানরা অন্য ধর্মের কোনো নেতার বিরুদ্ধে ব্যঙ্গ বিদ্রপ করে না। পশ্চিমা দেশের কতিপয় কুলাঙ্গাররা কিছু দিন পর পরই ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে উষ্কানিমূল প্রচারণা চালিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চায়। পীর সাহেব ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য জাতিসংঘের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান।

পীর সাহেব বিক্ষোভ সমাবেশে কতিপয় দাবি পেশ করেন। দাবিগুলো হচ্ছে, বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক নিন্দা জানাতে হবে, ফ্রান্সের সাথে বাংলাদেশের সবরকম কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে, ইসলাম ও রাসূলকে (সা.) অবমাননার জন্য ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টকে প্রকাশ্যে বিশ্ব মুসলিমের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে, অবিলম্বে ওআইসিতে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব আনতে হবে, বাংলাদেশে ইসলাম ও মহানবীর (স.) বিরুদ্ধে কটুক্তি বন্ধে কঠোর শাস্তির আইন পাশ করতে হবে, সারাবিশ্বের মুসলমানদের ইসলামবিদ্বেষী ফ্রান্সের পণ্য বর্জন করতে হবে, বিশ্ব মুসলিম নেতা এবং সাধারণ মুসলমানদেরকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ বিক্ষোভ অব্যাহত রাখতে হবে, যেসমস্ত মুসলিম রাষ্ট্রপ্রধান ইতোমধ্যে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে সাহসী বক্তব্য ও নিন্দা জানিয়েছেন এবং ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের ডাক দিয়েছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানানো হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, ফ্রান্স সরকার রাষ্ট্রীয়ভাবে পুলিশ পাহারায় মুহাম্মদ (সা.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে মুসলিম উম্মাহ’র কলিজায় আঘাত করা হয়েছে। ফ্রান্স সরকার ইসলাম ও মুসলমানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া বিশ্বের মুসলমানদের নৈতিক ও ঈমানি দায়িত্ব। নেতৃবৃন্দ বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও একজন কুলাঙ্গার শিক্ষা সালাম ও আল্লাহ হাফেজের বিরুদ্ধে উষ্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে মুসলমানদের হ্নদয়ে চরম আঘাত হেনেছে। তারা এ কুলাঙ্গার শিক্ষককে অবিলম্বে অপসারণের দাবি জানান। পরে ফ্রান্স দূতাবাস ঘেরাও এর লক্ষ্যে পীর সাহেব চরমোনাইয়ের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শান্তিনগর বাজারের সামনে পৌঁছলে পুলিশি বাধার সম্মুখীন হয়। মিছিলে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। সেখানে পুলিশ ও মিছিলকারীদের মাঝে কিছুক্ষণ ধাক্কাধাক্কি হয়।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ঢাকা মহানগরী : জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুর রব ইউসূফী বলেছেন, হাদীসের ভাষায় আল্লাহর রাসূল (সা.) কে পিতা-মাতা, সন্তান-সš‘তিসহ দুনিয়ার সবার চেয়ে বেশি ভাল বাসতে না পারলে প্রকৃত ঈমানদার হওয়া যায় না। তাই তাঁর ইজ্জতে কোন প্রকার আঘাত আসলে কিংবা তাঁকে ব্যঙ্গ করা হলে কোন মুসলমান চুপ করে বসে থাকতে পারেনা। তাঁর সম্মান ও মর্যাদা রক্ষায় শহীদ হতে পেরেও প্রকৃত মুসলমান গর্ববোধ করে। তিনি ফ্রান্সের অর্থনীতিতে ধ্বস নামাতে ফ্রান্সের সকল প্রকার পণ্য বর্জনের আহ্বান জানিয়ে বলেন, যার যতটুকু সামর্থ আছে তাকে ততটুকু নিয়ে নবীর ইজ্জত রক্ষায় এগিয়ে আসতে হবে। ফ্রান্সে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় মহানবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে জমিয়তের উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ ঢাকা মহানগরীর উদ্যোগে গতকাল বাদ আসর বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের উত্তর গেইটে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি এ পর্যন্ত এই ঘটনার সরকারিভাবে নিন্দা না জানানোর জন্য বাংলাদেশ সরকারের কড়া সমালোচনা করে বলেন, অবিলম্বে ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে এর প্রতিবাদ জানাতে হবে।

দলের কেন্দ্রীয় মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দীর সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মতিউর রহমান গাজিপুরীর পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে মধুপুর পীর সাহেব মাওলানা আব্দুল হামিদ। এতে আরো আরো বক্তব্য রাখেন, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা তাফাজ্জুল হক আজীজ, মুফতী বশিরুল হাসান খাদিমানী, মাওলানা জয়নাল আবেদীন, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস (মানিকনগর), মাওলানা লোকমান মাজহারী, মাওলানা মাহবুবুল আলম, মাওলানা ইখলাসুর রহমান, মাওলানা হেদায়েতুল ইসলাম, মাওলানা নূর মুহাম্মাদ কাসেমী, মাওলানা নূরে আলম ইসহাকী ও মাওলানা আব্দুস সালাম। মধুপুর পীর সাহেব মাওলানা আব্দুল হামিদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী একজন মুসলমান। উনি কী দেখেন না এ দেশের মুসলমানরা কী চান। আপনি একজন মুসলমান হিসেবে সিদ্ধান্ত নিন আপনি ফ্রান্সের কুলাঙ্গার প্রেসিডেন্টের পক্ষে থাকবেন না নবী (সা.) এর পক্ষে থাকবেন।

সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী বলেন, বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.) এর মর্যাদা রক্ষায় মুসলমানেরা জীবন দিতে প্রস্তুত আছে। তিনি ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর তীব্র সমালোচনা করে বলেন, এই মূহুর্তে তার থাকা উচিৎ পাগলাগারদে। এই রকম একজন গর্ধবতুল্য ও মস্তিস্ক বিকৃত মানুষের রাষ্ট্রপ্রধান হওয়া কিছুতেই মানায়না। তিনি আগামী শুক্রবার বাদ জুমা সমমাননা ইসলামী দলসমূহের গণজমায়েত ও বিক্ষোভ মিছিল সফল করারও আহ্বান জানান। পরে একটি বিশাল মিছিল বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইট থেকে বের হয়ে নাইট্যাঙ্গেল গিয়ে শেষ হয়।

মোহাম্মদপুর কাদেরিয়া তৈয়্যবিয়া আলিয়া মাদরাসার : মোহাম্মদপুর তৈয়্যেবিয়া আলিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল আল্লামা হাফেজ আবদুল আলিম রিজভী গতকাল বলেছেন, সম্প্রতি ফ্রান্সে প্রিয় নবী (সা.) এর অবমাননাকর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনে বিশ্ব মোড়লদের নিরবতা, ওআইসি, আরবলীগের অভিভাবকহীন মানসিকতা, জাতিসংঘের খেয়ালিপনায় বিশ্ববিবেককে নাড়া দিয়েছে। তিনি অবিলম্বে জাতিসংঘসহ সকল অভিভাবক সংস্থাকে নবী (সা.) ও ধর্মের প্রতি বিদ্বেষপোষণকারীদের শাস্তির আওতায় আনার বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানান। গতকাল মঙ্গলবার মোহাম্মদপুরে জশনে জুলুছ শেষে মোহাম্মদপুর মাদরাসার সামনে অনুষ্ঠিত মাহফিলে তিনি এ আহবান জানান।

বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি : বিশ্ব মুসলিমের প্রতি ফ্রান্সকে সর্বাত্মক বয়কট করার জন্য বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির আমীর আল্লামা সরওয়ার কামাল আজিজী ও মহাসচিব মাওলানা মুসা বিন ইযহার জোর দাবি জানিয়েছেন। এক বিবৃতিতে তারা বলেন, নবীজির অবমাননা মুসলমানরা কিছুতেই বরদাশত করবেন না। ফ্রান্স সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে বিশ্বমুসলিমকে উস্কে দিয়ে ধর্মযুদ্ধ বাধানোর ষড়যন্ত্র করছে। বিবৃতিতে তারা আরও উল্লেখ করেন, ফ্রান্স সরকারকে অবশ্যই উস্কানিমূলক কর্মকান্ড বন্ধ করে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। অবিলম্বে এ ধৃষ্টতাপূর্ণ ব্যঙ্গচিত্র প্রচার বন্ধ করতে হবে। এর অন্যথায় সারাবিশ্বের মুসলমানরা রাজপথে নামতে বাধ্য হবে। দেশে দেশে ছড়িয়ে পড়বে প্রতিবাদের দাবানল।

তারা বলেন, ফ্রান্স সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা না চাইলে অবিলম্বে বাংলাদেশে ফ্রান্স দূতাবাস বন্ধ করে দেয়া হোক। রাষ্ট্রীয়ভাবে ফ্রান্সের কর্মকান্ডের প্রতিবাদ না জানালে সারাদেশের মানুষ রাস্তায় নামতে বাধ্য হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তারা।

বাতিল প্রতিরোধ পরিষদ : বাতিল প্রতিরোধ পরিষদের সভাপতি হাজী জালাল উদ্দিন বকুল বিবৃতিতে বলেন, ফ্রান্সের কুলাঙ্গার প্রেসিডেন্ট নবী (সা.) এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশ করে বিশ্ব মুসলিমের কলিজায় আঘাত হেনেছে। কারণ মুসলমানরা তাদের নবী মুহাম্মদ (সা.)কে প্রাণের চেয়ে বেশি ভালোবাসে। নবীজির অবমাননা মুসলমানগণ কিছুতেই বরদাশত করবে না। ফ্রান্স সরকার নবীর বিরুদ্ধে ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের মাধ্যমে ধর্মযুদ্ধ বাধানোর ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। তিনি সকল ঈমানদার মুসলমানকে ফ্রান্সের পণ্য বর্জনের জোর দাবি জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Customized BY NewsTheme