1. admin@coxtimes.com : admin :
শিরোনাম :
সচেতনতায় পুলিশ মাঠে…. করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়লেও ঈদগাঁওতে বাড়েনি মানুষের মাঝে সচেতনতা ঈদগাঁওর জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাঠ পর্যায় ইউএনও ছয় দফা দাবীতে সিবিআইইউ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। ইসলামাবাদে গভীর রাতে সশস্ত্র হামলাঃনগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের অভিযোগ! পশ্চিম টেকপাড়া সমাজকল্যাণ পরিষদ কর্তৃক শহর পুলিশ ফাঁড়ি কক্সবাজার এর সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঈদগাঁও প্রেস ক্লাবের জরুরী সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ঈদগাঁওতে পরিবেশ আন্দোলনের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত। ঈদগাঁওর বাঁশঘাটায় তিনটি দোকান সিলগালা বাঁশখালী ছনুয়ার মানুষের যোগাযোগ সড়কের বেহাল দশা অবসানের পথে ইসলামাবা‌দের আ‌লো‌চিত জবর মুল্লুক হত্যা মামলার আসামী‌দের রিমা‌ন্ডে নি‌তে গ‌ড়িম‌সি পু‌লি‌শের ! ঈদগাঁও বাজা‌রে সড়‌কের উপর দোকান নির্মাণ, ভূ‌মি অ‌ফি‌সের নি‌ষেধাজ্ঞা ইসলামের প্রচার-প্রসারে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি: শেখ হাসিনা।

ইসলামাবাদে এক বাড়িতে বন্য হাতির তাণ্ডব

  • আপডেট টাইম: Friday, December 4, 2020
  • 106 বার পড়া হয়েছে

মোঃ আমির হোসেন::
ইসলামাবাদে এক বাড়িতে তাণ্ডব চালিয়েছে বন্য হাতি।
গত বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের মধ্যম গজালিয়া রাজঘাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গতকাল রাত ১২টার পর একটি বন্য হাতি রাজঘাট বিটের ভিলেজার মৃত মমতাজ হাজীর বাড়ির দেয়াল ভেঙে দেয়।

হাতি রাতভর বাড়ির গাছ, দরজা, দেয়াল ভেঙে ফেলে। পাশাপাশি ভিলেজার মৃত মমতাজ হাজীর ঘরের ৪/৫ বস্তা ধান ছিটিয়ে দেয় এবং বিদ্যুৎতিক মিটার উঠিয়ে নেয়।

ওই সময় আতঙ্কিত লোকজন নিরাপদ স্থানে অবস্থান নেয়। হাতিটি ফজরের আজানের পর পাহাড়ে উঠে গেলে লোকজন ঘরে ফেরে।

স্থানীয় লোকজন জানান, গত এক বছরে এই এলাকায় হাতির আক্রমণে ৩জন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছিলো,
হাতির আক্রমণে অনেক ঘর ধ্বংস হয়েছে।

আজ শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, হাতির তাণ্ডবের চিহ্ন। ঘরের দরজা, দেয়াল ভেঙে তছনছ করেছে হাতি।

ইসলামাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের সম্ভব্য চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ হোছন বলেন, বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে ভোররাত চারটা পর্যন্ত আমি ঘটনা স্থলের পাশাপাশি ছিলাম। ওই সময় হাতির তাণ্ডব চোখে দেখেছি।

মোঃ হোছন আরো বলেন, বেশ কয়েক মাস এলাকার লোকজনের ঘুম নেই। আজ এই বাড়ি তো কাল ওই বাড়িতে হানা দিচ্ছে হাতি। লোকজনের কষ্টের শেষ নেই।

কবে এই কষ্ট দূর হবে প্রশ্ন এলাকাবাসীর।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Customized BY NewsTheme