1. admin@coxtimes.com : admin :
শিরোনাম :
সচেতনতায় পুলিশ মাঠে…. করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়লেও ঈদগাঁওতে বাড়েনি মানুষের মাঝে সচেতনতা ঈদগাঁওর জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাঠ পর্যায় ইউএনও ইসলামাবাদ ইউনিয়ন আ,লীগের উদ্যোগে ৭২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থীদের দলীয় পদ পদবীর বিষয়ে অসনি সংকেট ছয় দফা দাবীতে সিবিআইইউ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। ইসলামাবাদে গভীর রাতে সশস্ত্র হামলাঃনগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের অভিযোগ! পশ্চিম টেকপাড়া সমাজকল্যাণ পরিষদ কর্তৃক শহর পুলিশ ফাঁড়ি কক্সবাজার এর সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঈদগাঁও প্রেস ক্লাবের জরুরী সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ঈদগাঁওতে পরিবেশ আন্দোলনের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত। ঈদগাঁওর বাঁশঘাটায় তিনটি দোকান সিলগালা বাঁশখালী ছনুয়ার মানুষের যোগাযোগ সড়কের বেহাল দশা অবসানের পথে ইসলামাবা‌দের আ‌লো‌চিত জবর মুল্লুক হত্যা মামলার আসামী‌দের রিমা‌ন্ডে নি‌তে গ‌ড়িম‌সি পু‌লি‌শের !

পিতা কে ইনজেকশন দিয়ে অজ্ঞান করে পাগল সাজিয়ে নোঙরে

  • আপডেট টাইম: Sunday, December 13, 2020
  • 92 বার পড়া হয়েছে

বাবাকে ইনজেকশন মেরে অজ্ঞান করে পাগল সাজিয়ে নোঙরে দিয়ে সবকিছু আত্মসাতের অভিযোগে ছেলের বিরুদ্ধে বাবার কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দায়ের।

কক্সবাজার সদর উপজেলাধীন জালালাবাদ ইউনিয়নের উত্তর পালাকাটা গ্রামের ইসমাঈল সওদাগর স্থায়ী বাসিন্দা হই। পার্শ্বোক্ত বিবাদী নুর মোহাম্মদ আমার ছেলে হয়। পার্শ্বোক্ত বিবাদী দূর্দ্দান্ত, দূর্লোভী ও ভূমি দূস্য প্রকৃতিক লোক হয়। সে দেশের প্রচলিত আইন কানুন কিছুই মানে না।

পার্শ্বোক্ত বিবাদী আমাকে বিগত ৩১/০৩/২০১৪ইং তারিখে সকালে ৮.০০ ঘটিকার সময় আমার টমটম সু-রুম হইতে ধরে নিয়ে গিয়ে বাড়ীতে আটকে রাখেন। সন্ধ্যা অনুমানিক ৪.০০ ঘটিকার সময় ডাক্তারকে নিয়ে গিয়ে আমি পাগল হয়েছিল বলে আমাকে ইনজেকশন মেরে ১৮ ঘন্টা অজ্ঞান করে রাখেন।

বিগত ১১/০৯/২০১৪ইং তারিখে আমাকে কক্সবাজার নোঙরে নিয়ে আটক করে রাখেন। সেখানে গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ গিয়ে আমাকে উদ্ধার করে আনেন। পার্শ্বোক্ত বিবাদীর স্ত্রী অর্থাৎ আমার পুত্রবধুকে আমি ধর্ষণ করেছি বলে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে বাড়ী ছাড়া করেন। এই সুবাধে আমার অজান্তে টমটমের সু-রুমের গাড়ি বিক্রি করিয়া সম্পূর্ণ টাকা আত্মসাৎ করিয়া ফেলে।

এর পরবর্তী ক্রয়কতৃ মেহেরঘোনাস্থিত বসত ভিটা হইতে জোর পূর্বক ৩০ (ত্রিশ) কড়া জমি কাঁড়িয়া নেয়। উক্ত জায়গা ১৩,০০,০০০/-(তের লক্ষ) টাকা দিয়ে মাস্টার ছানা উল্লাহকে বিক্রি করে দেয়। ইতিপূর্বে বিগত বছরে আমার আরেক ছেলে সৌদি আরবে গাড়ি এক্সিডেন্ট করে মারা যায়। সৌদি সরকার আমার মৃত ছেলেকে ৩২,০০,০০০/-(বত্রিশ লক্ষ) টাকা ক্ষতি পূরণ দেয়। উক্ত টাকা উত্তোলনের জন্য তার মামা জাফর আলমকে বিগত ২৪/০৪/২০১৩ইং তারিখে ক্ষমতা হস্তান্তর করি। উক্ত টাকা পার্শ্বোক্ত বিবাদীর যোগসাজসে সম্পূর্ণ টাকা আত্মসাৎ করে ফেলে।

বর্তমানে আমার বসত ভিটা পালাকাটায় জোর পূর্বকভাবে আমার বসতভিটাও দখল করে রাখে। উক্ত বসত ভিটাতে আমাকে বসতী করতে দিচ্ছে না এবং বিক্রিও করতে দিচ্ছে না। পার্শ্বোক্ত বিবাদী আমাকে হত্যা করবে, গুম করবে বিভিন্ন ধরণের মিথ্যা মামলায় জড়াইবে এই বলিয়া হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। এই ব্যাপারে কয়েক বার শালিশী বৈঠক হলেও সে এলাকার মেম্বার, চেয়াম্যানের বিচারে আচারে কোন ধরণের তোয়াক্কা করেনা। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Customized BY NewsTheme