1. admin@coxtimes.com : admin :
শিরোনাম :
সচেতনতায় পুলিশ মাঠে…. করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়লেও ঈদগাঁওতে বাড়েনি মানুষের মাঝে সচেতনতা ঈদগাঁওর জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাঠ পর্যায় ইউএনও ইসলামাবাদ ইউনিয়ন আ,লীগের উদ্যোগে ৭২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থীদের দলীয় পদ পদবীর বিষয়ে অসনি সংকেট ছয় দফা দাবীতে সিবিআইইউ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। ইসলামাবাদে গভীর রাতে সশস্ত্র হামলাঃনগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের অভিযোগ! পশ্চিম টেকপাড়া সমাজকল্যাণ পরিষদ কর্তৃক শহর পুলিশ ফাঁড়ি কক্সবাজার এর সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঈদগাঁও প্রেস ক্লাবের জরুরী সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ঈদগাঁওতে পরিবেশ আন্দোলনের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত। ঈদগাঁওর বাঁশঘাটায় তিনটি দোকান সিলগালা বাঁশখালী ছনুয়ার মানুষের যোগাযোগ সড়কের বেহাল দশা অবসানের পথে ইসলামাবা‌দের আ‌লো‌চিত জবর মুল্লুক হত্যা মামলার আসামী‌দের রিমা‌ন্ডে নি‌তে গ‌ড়িম‌সি পু‌লি‌শের !

ছয় মাসে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১২ আহত ৬৯

  • আপডেট টাইম: Saturday, January 23, 2021
  • 96 বার পড়া হয়েছে

মোঃ কাউছার ঊদ্দীন শরীফ, ঈদগাঁওঃ

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের রামু উপজেলা হইতে চকরিয়ার উপজেলার খুটাখালী পর্যন্ত বিভিন্ন ইউনিয়নের এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১২ জন। আহত হয়েছেন ৬৯ জন। সড়ক দুর্ঘটনার বড় কারণ বেপরোয়া গতি। বেশির ভাগ দুর্ঘটনাই গাড়ি চাপা দেওয়ার ঘটনা।
জানা যায়,কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের রামু হইতে খুটাখালী পর্যন্ত বিভিন্ন ইউনিয়নের এলাকায় বেপরোয়া গতি চালকদের বেপরোয়া মানসিকতা, অদক্ষতা ও শারীরিক-মানসিক অসুস্থতা, বেতন ও কর্মঘণ্টা নির্দিষ্ট না থাকা, মহাসড়কে স্বল্পগতির যানবাহন চলাচল, তরুণ ও যুবদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো,জনসাধারণের মধ্যে ট্রাফিক আইন না জানা ও না মানার প্রবণতা, দুর্বল ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা; বিআরটিএ’র সক্ষমতার ঘাটতি এবং গণপরিবহণ খাতে চাঁদাবাজির কারণে সড়ক দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যে কারণে যান চলাচল যেমন বিঘিœত হচ্ছে তেমনি ঘটছে মারাত্মক দূর্ঘটনা।

শুক্রবার ২২ জানুয়ারী বিকাল সাড়ে ৪ টার দিকে চট্টগ্রাম -কক্সবাজার মহাসড়কের ঈদগাঁও ইউনিয়নের চান্দের ঘোনা এলাকায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় টমটম চালক সহ তিন জন আহত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারী সকাল ৮ টার দিকে চট্টগ্রাম -কক্সবাজার মহাসড়কের ইসলামাবাদ ইউনিয়নের খোদাই বাড়ী এলাকার ইসলামপুর জুম নগরে ইলিয়াছের ছেলে মোটর সাইকেল আরোহী সাইফুল ইসলাম প্রাইভেট নোহা গাড়ির চাপায় ঘটনাস্থলে নিহত হন। এবং অপর ভাই জাহেদুল ইসলামও গুরুতর আহত হয়ে বর্তমান চমেক হাসপাতালে চিকিৎধীন। নিহত সাইফুলের লাশ ময়না তদন্ত সম্পন্ন করে ২২ জানুয়ারী দাফন সম্পন্ন হয়। উক্ত ঘটনায় নিহতের পিতা ইলিয়াছ ঈদগাঁও থানার ২য় মামলা হিসেবে এজাহার জমা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য আবদুস শুক্কুর।
১৬ ই জানুয়ারি কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শাহ ফকিরা বাজার এলাকায় যাত্রীবাহী হানিফ পরিবহনের ধাক্কায় ঈদগাঁও থানার কনস্টেবল হাসিব আহত হয়। আহত ব্যক্তিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়াই ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন গতকাল রাতে তিনি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।
বুধবার (৬ জানুয়ারি) রাত আটটায় রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের চা বাগান এলাকায় স্বাধীন ট্রাভেলস পরিবহনের একটি বাস বিপরীতমুখি একটি অটোরিক্সা (সিএনজি) গাড়িতে ধাক্কা দিলে জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের সওদাগর পাড়া এলাকার মৃত দলিলুর রহমানের মেয়ে রামু সরকারি কলেজের ছাত্রী নাসরিন জাহান বৈশাখী ঘটনাস্থলে নিহত হয়।
রবিবার (৩ জানুয়ারি) সকাল ১১ টার দিকে ইসলামপুর ইউনিয়নের বাঁশকাটা এসিএফ পাহাড় এলাকায় চালিত টমটমের ধাক্কায় জান্নাতুন নাঈম জাকিয়া (৫) নামক শিশু নিহত হয়েছে।
শুক্রবার ৪ ডিসেম্বর বিকাল ৫ টার দিকে চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের কালু ফকিরপাড়া এলাকায় সিএনজির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আরোহী দুই জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন জালালাবাদ ইউনিয়ন মধ্যম পালাকাটার হাজী মোহাম্মদ হোসাইনের কনিষ্ঠ সন্তান এবং জনপ্রিয় অনলাইন সংবাদ মাধ্যম ঈদগাঁও টিভির সম্পাদক ও প্রকাশ কমাহমুদুল করিম ও তার ভগ্নীপতি আবদুর রহমান।
২৯ নভেম্বর রবিবার সকাল ৯ টার দিকে রামুর দক্ষিণ মিঠাছড়ি কাইম্যার ঘোনা এলাকায় মোটরসাইকেল ও সী-লাইন এর মুখোমুখি সংঘর্ষে একটি সী- লাইন গাড়ি উল্টে যায়।
এতে এক বৃদ্ধ নিহত হয়। গুরুতর আহত ২০ জন সীলাইন যাত্রী।
২৫ নভেম্বর রাত ৮ টার দিকে চট্টগ্রাম -কক্সবাজার মহাসড়কের ইসলামাবাদ শাহ ফকির বাজারে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় টমটম চালক নিহত হয়েছে। নিহত টমটম চালক মোঃ তুষার (২৫)পাশ্ববর্তী ইসলামপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের চকিদার ও মধ্যম নাপিতখালীর বাসিন্দা আমির হোসেনের ছেলে।
১৬ নভেম্বর সকাল ১০ টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের রশিদ নগর মামুন মিয়ার বাজার এলাকায় কক্সবাজার মুখী মালবাহী ক্যাভার্ড ভ্যানটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কা লেগে ঘটনাস্থলেই গাডির হেলপার নিহত হয় । নিহত হেলপার রামু কলঘর সিকদার পাড়া এলাকার মোঃ হোসেন ছেলে মোঃ নুরুল আজিম। এসময় আরেক জন আহত হয়েছিল।
১৪ অক্টোবর দুপুর দুইটার দিকে কক্সবাজার চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী মইক্ক্যাঘোনা এলাকায় কক্সবাজারমুখী চকরিয়া সার্ভিস বিপরীতমুখী দ্রুতগামী ডাম্পারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।এতে ঘটনাস্থলে ডাম্পার চালকের মৃত্যু হয়।নিহত ডাম্পার চালক বাবু খুটাখালী ইউনিয়নের উত্তর ফুলছড়ি গ্রামের আবু বক্করের ছেলে। এসময় চকরিয়া সার্ভিসের ১২ জন যাত্রী আহত হয়।
১১ অক্টোবর ভোর ৬ টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের ইসলামাবাদ ওয়াহেদর পাড়া হাঁসের দিঘী এলাকায় কক্সবাজার মুখী যাত্রীবাহী নীলাচল পরিবহন বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কা লেগে দূর্ঘটনায় শিকার হয়। এতে ২ জন নিহত এবং ১৫ জন হয়।
শুক্রবার (২১ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫ টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের বার্মাইয়া পাড়ায় এলাকায় রামুতে যাত্রীবাহী বাস উল্টে খাদে পড়ে দুইজন নিহত ১৫ জন আহত হয়।
১৪ অক্টোবর দুপুর দুইটার দিকে কক্সবাজার চট্টগ্রাম মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী মইক্ক্যাঘোনা এলাকায় কক্সবাজারমুখী চকরিয়া সার্ভিস বিপরীতমুখী দ্রুতগামী ডাম্পারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।এতে ঘটনাস্থলে ডাম্পার চালকের মৃত্যু হয়।নিহত ডাম্পার চালক বাবু খুটাখালী ইউনিয়নের উত্তর ফুলছড়ি গ্রামের আবু বক্করের ছেলে। এসময় চকরিয়া সার্ভিসের ১২ জন যাত্রী আহত হয়।
১১ অক্টোবর ভোর ৬ টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের ইসলামাবাদ ওয়াহেদর পাড়া হাঁসের দিঘী এলাকায় কক্সবাজার মুখী যাত্রীবাহী নীলাচল পরিবহন বৈদ্যুতিক খুঁটির সাথে ধাক্কা লেগে দূর্ঘটনায় শিকার হয়। এতে ২ জন নিহত এবং ১৫ জন হয়।
শুক্রবার (২১ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৫ টায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের বার্মাইয়া পাড়ায় এলাকায় রামুতে যাত্রীবাহী বাস উল্টে খাদে পড়ে দুইজন নিহত ১৫ জন আহত হয়।সচেতন নাগরিকরা বলেন,দক্ষ চালক তৈরির উদ্যোগ বাড়াতে হবে; চালকের বেতন ও কর্মঘন্টা নির্দিষ্ট করতে হবে; বিআরটিএ’র সক্ষমতা বাড়াতে হবে; পরিবহনের মালিক-শ্রমিক, যাত্রী ও পথচারীদের প্রতি ট্রাফিক আইনের বাধাহীন প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে; মহাসড়কে স্বল্পগতির যানবাহন চলাচল বন্ধ করে এগুলোর জন্য আলাদা পার্শ্বরাস্তা তৈরি করতে হবে; পর্যায়ক্রমে সকল মহাসড়কে রোড ডিভাইডার নির্মাণ করতে হবে; গণপরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধ করতে হবে; সড়ক পথ সংস্কার ও সম্প্রসারণ করে সড়ক পথের ওপর চাপ কমাতে হবে; টেকসই পরিবহন কৌশল প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করতে হবে এবং ‘সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮’র সুষ্ঠু প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে। সড়ক পরিবহন খাতে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি নেই। পরিবহন খাতের এই নৈরাজ্য ও অব্যবস্থাপনা দীর্ঘদিন যাবৎ অসুস্থ রাজনীতির ধারাবাহিক চর্চার কারণে গড়ে উঠেছে। এখানে অনেকগুলো কারণ জড়িয়ে পরিস্থিতি জটিল হয়ে পড়েছে। তবে প্রধান ও উৎস কারণ— দুর্নীতি ও চাঁদাবাজির তথাকথিত রাজনীতি। তাই সমস্যাটির সমাধান করতে হলে সরকারকে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। দেশের সুষম ও টেকসই উন্নয়নের পূর্বশর্ত হলো সাশ্রয়ী ও নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা। সেজন্য জাতীয় স্বার্থেই সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে সরকারের মনোযোগী হওয়া উচিত।
এ বিষয়ে ট্রাফিক পুলিশের টি আই,এডমিন আমজাদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসপি স্যারের নির্দেশ ছাড়া বক্তব্য দিতে পারবে না বলে জানান। পরে এসপি কে কল দেওয়া হলে তিনি মুঠোফোন রিসিভ না করাই বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Customized BY NewsTheme