1. admin@coxtimes.com : admin :
শিরোনাম :
সচেতনতায় পুলিশ মাঠে…. করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়লেও ঈদগাঁওতে বাড়েনি মানুষের মাঝে সচেতনতা ঈদগাঁওর জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানাতে মাঠ পর্যায় ইউএনও ছয় দফা দাবীতে সিবিআইইউ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। ইসলামাবাদে গভীর রাতে সশস্ত্র হামলাঃনগদ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের অভিযোগ! পশ্চিম টেকপাড়া সমাজকল্যাণ পরিষদ কর্তৃক শহর পুলিশ ফাঁড়ি কক্সবাজার এর সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঈদগাঁও প্রেস ক্লাবের জরুরী সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত ঈদগাঁওতে পরিবেশ আন্দোলনের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত। ঈদগাঁওর বাঁশঘাটায় তিনটি দোকান সিলগালা বাঁশখালী ছনুয়ার মানুষের যোগাযোগ সড়কের বেহাল দশা অবসানের পথে ইসলামাবা‌দের আ‌লো‌চিত জবর মুল্লুক হত্যা মামলার আসামী‌দের রিমা‌ন্ডে নি‌তে গ‌ড়িম‌সি পু‌লি‌শের ! ঈদগাঁও বাজা‌রে সড়‌কের উপর দোকান নির্মাণ, ভূ‌মি অ‌ফি‌সের নি‌ষেধাজ্ঞা ইসলামের প্রচার-প্রসারে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি: শেখ হাসিনা।

ঈদগাঁও ভুমি অফিসে রাম রাজত্ব করছে দালালেরা

  • আপডেট টাইম: Monday, March 15, 2021
  • 50 বার পড়া হয়েছে


নিজস্ব প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও ইউনিয়ন ভূমি অফিসে রাম রাজত্ব করছে দালালেরা
ভূমি অফিসের সরকারী অথবা মাষ্টার রোলভুক্ত কোন কর্মচারী না হয়েও দীর্ঘ বছর যাবৎ নিয়মিত অফিস (!) করছে জনৈক মনসুর নামের ব্যক্তি এবং তার দুই সহযোগী জঙ্গী ও ফরিদ । প্রাপ্ত অভিযোগে প্রকাশ মনসুর নামের উক্ত উমেদার তহসীলদারসহ অপরাপর কর্মকর্তাদের সম্মুখে প্রতিদিন সরকারী গুরুত্বপূর্ন কাগজপত্র বালাংবই ও অপরাপর গোপনীয় ডকুমেন্ট ঘাটাঘাটি করলেও এসব যেন দেখার কেউ নেই।

জানা গেছে সদরের ৭/৮ টি প্রশাসনিক ইউনিয়নের ভূমি ব্যাবস্থাপনা ও এ সংক্রান্ত যাবতীয় কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রিত হয় ঈদগাঁও ভূমি অফিস থেকে। উক্ত মনসুর প্রতিদিন সরকারী এ প্রতিষ্ঠানে এসে রীতিমত চেয়ার টেবিল নিয়ে বসে সেবাপ্রার্থীদের থেকে বিভিন্ন বাহানায় মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। জমি নামজারী করে দেয়া, দাখিলা-খাজনা আদান প্রদান ইত্যাদির কন্ট্রাক্ট নিয়ে মোটা টাকা আদায় ও অবৈধভাবে সরকারী কাগজপত্র ঘাটাঘাটি করে যাচ্ছে।

এতে করে সরকারী বিভিন্ন নথিপত্রের গোপণীয়তা অরক্ষিত হয়ে পড়েছে। আরো জানা যায় দৃশ্যমান অন্যকোন পেশা না থাকলেও শুধুমাত্র ভূমি অফিসে উমেদারী নামে ধান্দাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে। এমনকি প্রতিদিন সকাল-সন্ধা ছুটির দিনেও ঈদগাঁও ইউনিয়ন ভূমি অফিসে সরকারী কাগজপত্র ঘাটাঘাটি করে সে। ভূমি তহসীলদার প্রত্যক্ষ মদদে উমেদারী মনছুর এ অফিস দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বলে জানা গেছে। আরো যানা যায় টিপু নামের আরেক দালাল, কক্সবাজার থেকে নামজারি মামলা রিসিভ করে ঈদগাঁও ভুমি অফিস জমা না দিয়ে ১সপ্তাহ বাসায় রেখে নামজারি মামলা আবেদন কারী কে ফোন করে কন্টাকের প্রস্তাব দেন যে আবেদন কারী প্রস্তাবে রাজি হয় সেই নামজারি নথি ঈদগাঁও হাসমাহলে জমা দিয়ে দেয় বাকি নথি গুম করে রাখে, সরেজমিনে তদন্ত করে বেরিয়ে দালাল চক্র তারা হলেন মনছুর আলমের সহকারী হিসাবে আছে জঙ্গী, ফরিদ, যাবতীয় রেকর্ড প্রএ নামজারি মামলার,নথি, এমআর,মামলা, বন্দবস্তী নথি, বিভিন্ন সরকারি গোপনীয় কাগজ পত্র তার নিজস্ব অফিসে রাখেন,তহসিলদারের সহযোগিতায় প্রতি নিয়ত এই কাজ করে যাচ্ছে এবং বিভিন্ন যায়গা তদন্ত প্রতিবেদনে,তহসিলদার সাহেব দালাল মনছুর কে প্রতিনিধি হিসেবে ঠিক করে দেন বাদি- বিবাদী উভয় পক্ষে থেকে মুটা অক্ষরে টাকা নিয়েঐ টাকা ভাগ করে নেন,স্থাননীয় ভুক্তভোগীরা জানান অসাধু সরকারি কর্মকর্তাদের কবল হতে কবে নাগাদ মুক্তি পাবো।সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে পদক্ষেপ নেওয়ার জোর দাবি জানান স্থাননীয় সচেতন নাগরিক
তহসীলদার নুরুল আমিন সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। অভিযুক্ত উমেদার মনছুর ও টিপু জানান অফিসের সব কর্তাকে ম্যানেজ করেই উমেদারী করছেন তিনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Customized BY NewsTheme